ব্রেকিং নিউজ ::
শিবপুরের সাধারচরে বিভিন্ন পূজা মন্ডপ পরিদর্শন ও নগদ অর্থ প্রদান করলেন জাহিদুল হক দিপু জেলা ছাত্রলীগের সভাপতির নির্দেশে পূজা মন্ডপে পাহারায় থাকবে শিবপুর উপজেলা ছাত্রলীগ শিবপুরে প্রতিবন্ধীদের মাঝে হুইল চেয়ার বিতরণ করলেন কৃষিবিদ মাহবুবুল হাসান শিবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ফল বিতরণ করলেন কৃষিবিদ আ.ফ.ম মাহবুবুল হাসান প্রকাশ্যে এলো শাকিব-বুবলীর সন্তান শেহজাদ খান বীর শিক্ষা ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের জন্য সম্মাননা অ্যাওয়ার্ড পেলেন মাহফুজুল হক টিপু শিবপুরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন পালন শিবপুরে পুকুর থেকে অজ্ঞাত যুবকের অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার শিবপুরে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান সালাউদ্দিন খান অরুনের ৪র্থ মৃত্যুবার্ষিকী পালন শিবপুরে স্বেচ্ছাসেবক লীগের সদস্য সংগ্রহ ও বর্ধিত সভা
শিবপুরে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের সংবাদ সম্মেলন

শিবপুরে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের সংবাদ সম্মেলন

বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি কর্তৃক মিথ্যা অভিযোগের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছেন নরসিংদীর শিবপুর উপজেলার ৬৭ নং ভঙ্গারটেক সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক ফেরদৌসী আক্তার। তিনি সোমবার (৮ নভেম্বর) বিকালে তার নিজ বাড়ী লালখারটেক এই সংবাদ সম্মেলন করেন। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, আমি বিগত ১৭/০২/২০২০ ইং হতে বিদ্যালয়টির ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছি। গত ৩০ অক্টোবর আমার বিরুদ্ধে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি সিরাজুল ইসলাম খান ওনার স্বার্থসিদ্ধি হাসিল করতে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করেন। অভিযোগে সভাপতির স্বাক্ষর জাল করে শ্লিপ ও রুটিন মেরামতের বরাদ্দকৃত অর্থ উত্তোলন ও আত্মসাৎ, বিদ্যালয়ের কাঁঠাল বিক্রির ১১হাজার ৫শ টাকা আত্মসাৎ, একজন শিক্ষকের মাতৃত্বকাল ছুটি নিয়ে অনিয়মের অভিযোগ করেন। আর এসবের ভিত্তিতে গত ২ নভেম্বর দৈনিক আজকের পত্রিকায় প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ” শিরোনামে সংবাদ প্রকাশিত হয়।

প্রকৃত পক্ষে অভিযোগগুলো সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট এবং উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। সভাপতির স্বাক্ষরের মাধ্যমেই অর্থ উত্তোলন করা হয়। কাঁঠাল বিক্রি করেছেন বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সহ-সভাপতি এবং সেই অর্থ ওনার হাতেই গচ্ছিত আছে। একজন সহকারী শিক্ষক মাতৃত্বকালীন ছুটির বিষয়ে তিনি যে অভিযোগ দিয়েছেন তাও ভিত্তিহীন। কোভিড-১৯ চলাকালীন সময়ে উল্লেখিত সহকারী শিক্ষকের সন্তান ভূমিষ্ট হয়। বর্তমানে বিদ্যালয়ের পাঠদান কার্যক্রম শুরু হলে যথারীতি সে নিয়মিতভাবে বিদ্যালয়ে পাঠদান চালিয়ে যাচ্ছে। আমি উল্লেখিত সহকারী শিক্ষকের হাজিরা খাতায় কোনো স্বাক্ষর করি নাই। সহকারী শিক্ষক নিজেই তার হাজিরা খাতায় স্বাক্ষর করছেন। আমি এই অসত্য অভিযোগের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যদের মধ্যে ফেরদৌসী ইসলামের পিতা ইসমাঈল মাস্টার, শিবপুর প্রেস ক্লাবের সভাপতি এস এম খোরশেদ আলম, সাধারণ সম্পাদক এস এম আরিফুল হাসানসহ অন্যান্য সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

সামাজিক যোগাযোগ এ শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© সকল স্বত্ব www.muktasangbad.com অনলাইন ভার্শন কর্তৃক সংরক্ষিত