ঢাকা ০৭:০৮ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::

শিবপুরে স্কুল ছাত্রীর আত্মহত্যার প্ররোচনায় জড়িত নন শিক্ষিকা,তদন্ত প্রতিবেদন জমা

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৮:২৭:১৪ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৯ সেপ্টেম্বর ২০২২
  • / ১১২২ বার পড়া হয়েছে

শিবপুর প্রতিনিধি: ইঁদুর মারার বিষ পানে নিহত শিবপুর পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেনীর ছাত্রী আইনুন তাজরি প্রভাকে শাসন করলেও আত্মহত্যার প্ররোচনায় শিক্ষিকা নারগিস সুলতানা কনিকার সংশ্লিষ্টতা পায়নি বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের তদন্তকারী কর্মকর্তা।

বৃহস্পতিবার দুপুরে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জিনিয়া জিন্নাতের নিকট ৪৬ পৃষ্ঠার একটি তদন্ত প্রতিবেদন জামা দেয়া হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তদন্তকারী কর্মকর্তা ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আলতাফ হোসেন।

তিনি জানান, প্রতিবেদনে বিদ্যালয়ের ৩০ জন শিক্ষক, ১৯ জন শিক্ষার্থী, দুজন অভিভাবক, প্রভার মা, কয়েকজন প্রতিবেশী ও পুলিশের সাক্ষ্য নেওয়া হয়েছে।

অভিযুক্ত শিক্ষিকা নারগিস সুলতানা কনিকা স্কুল ছাত্রী প্রভাকে ক্লাসরুমে কোনো ধরনের শাসন করেননি। বিদ্যালয়ের সিঁড়ির মধ্যে প্রভাকে শাসন করেন বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করেন তিনি।

উল্লেখ্য,গত বৃহস্পতিবার (১ সেপ্টেম্বর) শিবপুর সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের নির্ধারিত পোশাকের সঙ্গে টাইস পরে বিদ্যালয়ে গেলে অষ্টম শ্রেণীর শিক্ষার্থী আইনুন তাজরি প্রভাকে শিক্ষকা নার্গিস সুলতানা কনিকা অপমান ও মারধর করায় বিকেলে বিদ্যালয় থেকে বের হয়ে ওই শিক্ষার্থী বাজার থেকে ক্রয় করে ইঁদুর মারার বিষ খেয়ে শিবপুর মডেল থানায় গিয়ে শিক্ষিকার বিরুদ্ধে অভিযোগ করে অসুস্থ হয়ে যায়।

সেখান থেকে প্রথমে শিবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসার পর নরসিংদী সদর হাসপাতালে নিলে প্রভাকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসক।

ওই রাতেই বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ অভিযুক্ত শিক্ষক নার্গিস সুলতানা কনিকাকে সাময়িক বরখাস্ত করে।

পরদিন শুক্রবার অভিযুক্ত শিক্ষিকা কনিকার বিরুদ্ধে আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগ এনে শিবপুর মডেল থানার উপপরিদর্শক আফজাল মিয়া বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

Mahbub Khan Akash

"মুক্ত সংবাদ" আপনার মত প্রকাশে সদা জাগ্রত। আমরা কাজ করি সত্যের অন্বেষণে।
ট্যাগস :

শিবপুরে স্কুল ছাত্রীর আত্মহত্যার প্ররোচনায় জড়িত নন শিক্ষিকা,তদন্ত প্রতিবেদন জমা

আপডেট সময় : ০৮:২৭:১৪ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৯ সেপ্টেম্বর ২০২২

শিবপুর প্রতিনিধি: ইঁদুর মারার বিষ পানে নিহত শিবপুর পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেনীর ছাত্রী আইনুন তাজরি প্রভাকে শাসন করলেও আত্মহত্যার প্ররোচনায় শিক্ষিকা নারগিস সুলতানা কনিকার সংশ্লিষ্টতা পায়নি বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের তদন্তকারী কর্মকর্তা।

বৃহস্পতিবার দুপুরে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জিনিয়া জিন্নাতের নিকট ৪৬ পৃষ্ঠার একটি তদন্ত প্রতিবেদন জামা দেয়া হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তদন্তকারী কর্মকর্তা ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আলতাফ হোসেন।

তিনি জানান, প্রতিবেদনে বিদ্যালয়ের ৩০ জন শিক্ষক, ১৯ জন শিক্ষার্থী, দুজন অভিভাবক, প্রভার মা, কয়েকজন প্রতিবেশী ও পুলিশের সাক্ষ্য নেওয়া হয়েছে।

অভিযুক্ত শিক্ষিকা নারগিস সুলতানা কনিকা স্কুল ছাত্রী প্রভাকে ক্লাসরুমে কোনো ধরনের শাসন করেননি। বিদ্যালয়ের সিঁড়ির মধ্যে প্রভাকে শাসন করেন বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করেন তিনি।

উল্লেখ্য,গত বৃহস্পতিবার (১ সেপ্টেম্বর) শিবপুর সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের নির্ধারিত পোশাকের সঙ্গে টাইস পরে বিদ্যালয়ে গেলে অষ্টম শ্রেণীর শিক্ষার্থী আইনুন তাজরি প্রভাকে শিক্ষকা নার্গিস সুলতানা কনিকা অপমান ও মারধর করায় বিকেলে বিদ্যালয় থেকে বের হয়ে ওই শিক্ষার্থী বাজার থেকে ক্রয় করে ইঁদুর মারার বিষ খেয়ে শিবপুর মডেল থানায় গিয়ে শিক্ষিকার বিরুদ্ধে অভিযোগ করে অসুস্থ হয়ে যায়।

সেখান থেকে প্রথমে শিবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসার পর নরসিংদী সদর হাসপাতালে নিলে প্রভাকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসক।

ওই রাতেই বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ অভিযুক্ত শিক্ষক নার্গিস সুলতানা কনিকাকে সাময়িক বরখাস্ত করে।

পরদিন শুক্রবার অভিযুক্ত শিক্ষিকা কনিকার বিরুদ্ধে আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগ এনে শিবপুর মডেল থানার উপপরিদর্শক আফজাল মিয়া বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন।