ঢাকা ০৬:৫৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::

শিবপুরে কুকুরের কামড়ে আহত ১০

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৯:২১:৪৯ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০২২
  • / ৬৩৮ বার পড়া হয়েছে

ইয়াছিন মোল্লাকে সাথে নিয়ে মাহবুব খান :

শিবপুর উপজেলায় বেওয়ারিশ কুকুরের উপদ্রব আশংকাজনকহারে বেড়েছে। গত দুদিনে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে

কুকুরের কামড়ে অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। আহত ব্যক্তিদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসা হলে ভ্যাকসিন না থাকায় তাদের নরসিংদী সদর ও ঢাকা সংশ্লিষ্ট  হাসপাতালে পাঠানো হয়।

আহত ব্যক্তিরা হলেন উপজেলার মাছিমপুর ইউনিয়নের খড়িয়া গ্রামের মৃত আমজাদের ছেলে শামসুল (৬৫), ধানুয়া গ্রামের মৃত হাফিজ উদ্দীনের ছেলে সবুজ (৩৬),জাহার আলীর স্ত্রী মিলন বেগম (৪০),অলেকচানের স্ত্রী নূরজাহান (৩৫),দত্তেরগাঁও গ্রামের সালামের ছেলে রকিব (১৮) সহ অন্তত ১০জন। বাড়ি থেকে বের হয়ে কাজে যাওয়ার সময় কিংবা চায়ের দোকানে,বাজারে ও বিভিন্ন গন্তব্যে যাওয়ার সময় তারা কুকুরের কামড়ে আহত হন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, দুই দিনের ব্যবধানে উপজেলার দুলালপুর,গড়বাড়ি,দত্তেরগাঁও,খড়িয়া ও ধানুয়া গ্রামসহ উপজেলার বিভিন্ন এলাকার অন্তত ১০জন শিশু,কিশোর,মহিলা ও বৃদ্ধ ব্যক্তিকে কুকুর কামড়ানোর ঘটনা ঘটেছে।আহত ব্যক্তিদের হাতে,পায়ের গোড়ালি ও কপালে কামড়িয়ে গুরুতর জখম করেছে বলে জানা যায়।এতে বিভিন্ন এলাকায় ‘পাগলা’ কুকুরের আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. ফারহানা আহমেদ জানান, হাসপাতালে সরবরাহকৃত ভ্যাকসিন শেষ হয়ে গেছে। পর্যাপ্ত ভ্যাকসিন না থাকার ফলে আমরা চিকিৎসা দিতে পারছিনা। নতুন বরাদ্দ পেলেই ভ্যাকসিন দেওয়া যাবে।

বেওয়ারিশ কুকুর মারা বন্ধ থাকায় এমন অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে বলে মনে করেন শিবপুর উপজেলাবাসী।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

Mahbub Khan Akash

"মুক্ত সংবাদ" আপনার মত প্রকাশে সদা জাগ্রত। আমরা কাজ করি সত্যের অন্বেষণে।
ট্যাগস :

শিবপুরে কুকুরের কামড়ে আহত ১০

আপডেট সময় : ০৯:২১:৪৯ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০২২

ইয়াছিন মোল্লাকে সাথে নিয়ে মাহবুব খান :

শিবপুর উপজেলায় বেওয়ারিশ কুকুরের উপদ্রব আশংকাজনকহারে বেড়েছে। গত দুদিনে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে

কুকুরের কামড়ে অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। আহত ব্যক্তিদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসা হলে ভ্যাকসিন না থাকায় তাদের নরসিংদী সদর ও ঢাকা সংশ্লিষ্ট  হাসপাতালে পাঠানো হয়।

আহত ব্যক্তিরা হলেন উপজেলার মাছিমপুর ইউনিয়নের খড়িয়া গ্রামের মৃত আমজাদের ছেলে শামসুল (৬৫), ধানুয়া গ্রামের মৃত হাফিজ উদ্দীনের ছেলে সবুজ (৩৬),জাহার আলীর স্ত্রী মিলন বেগম (৪০),অলেকচানের স্ত্রী নূরজাহান (৩৫),দত্তেরগাঁও গ্রামের সালামের ছেলে রকিব (১৮) সহ অন্তত ১০জন। বাড়ি থেকে বের হয়ে কাজে যাওয়ার সময় কিংবা চায়ের দোকানে,বাজারে ও বিভিন্ন গন্তব্যে যাওয়ার সময় তারা কুকুরের কামড়ে আহত হন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, দুই দিনের ব্যবধানে উপজেলার দুলালপুর,গড়বাড়ি,দত্তেরগাঁও,খড়িয়া ও ধানুয়া গ্রামসহ উপজেলার বিভিন্ন এলাকার অন্তত ১০জন শিশু,কিশোর,মহিলা ও বৃদ্ধ ব্যক্তিকে কুকুর কামড়ানোর ঘটনা ঘটেছে।আহত ব্যক্তিদের হাতে,পায়ের গোড়ালি ও কপালে কামড়িয়ে গুরুতর জখম করেছে বলে জানা যায়।এতে বিভিন্ন এলাকায় ‘পাগলা’ কুকুরের আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. ফারহানা আহমেদ জানান, হাসপাতালে সরবরাহকৃত ভ্যাকসিন শেষ হয়ে গেছে। পর্যাপ্ত ভ্যাকসিন না থাকার ফলে আমরা চিকিৎসা দিতে পারছিনা। নতুন বরাদ্দ পেলেই ভ্যাকসিন দেওয়া যাবে।

বেওয়ারিশ কুকুর মারা বন্ধ থাকায় এমন অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে বলে মনে করেন শিবপুর উপজেলাবাসী।