ব্রেকিং নিউজ ::
শিবপুরের সাধারচরে বিভিন্ন পূজা মন্ডপ পরিদর্শন ও নগদ অর্থ প্রদান করলেন জাহিদুল হক দিপু জেলা ছাত্রলীগের সভাপতির নির্দেশে পূজা মন্ডপে পাহারায় থাকবে শিবপুর উপজেলা ছাত্রলীগ শিবপুরে প্রতিবন্ধীদের মাঝে হুইল চেয়ার বিতরণ করলেন কৃষিবিদ মাহবুবুল হাসান শিবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ফল বিতরণ করলেন কৃষিবিদ আ.ফ.ম মাহবুবুল হাসান প্রকাশ্যে এলো শাকিব-বুবলীর সন্তান শেহজাদ খান বীর শিক্ষা ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের জন্য সম্মাননা অ্যাওয়ার্ড পেলেন মাহফুজুল হক টিপু শিবপুরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন পালন শিবপুরে পুকুর থেকে অজ্ঞাত যুবকের অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার শিবপুরে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান সালাউদ্দিন খান অরুনের ৪র্থ মৃত্যুবার্ষিকী পালন শিবপুরে স্বেচ্ছাসেবক লীগের সদস্য সংগ্রহ ও বর্ধিত সভা
কর্মস্থলে যোগদানের দাবিতে উপাচার্যকে অবরুদ্ধ

কর্মস্থলে যোগদানের দাবিতে উপাচার্যকে অবরুদ্ধ

 

 

কর্মস্থলে যোগদানের দাবিতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য (রুটিন দায়িত্ব) অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহা, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক চৌধুরী মো. জাকারিয়াসহ প্রশাসনের শীর্ষ কর্তাদের অবরুদ্ধ করে রেখেছে এডহকে নিয়োগপ্রাপ্তরা।

সোমবার বেলা দেড়টার দিক থেকে আন্দোলনকারীরা উপাচার্যের সম্মেলন কক্ষে অবস্থান করছেন। কক্ষে উপাচার্য (রুটিন দায়িত্ব) উপ-উপাচার্য এবং রেজিস্ট্রার অধ্যাপক আব্দুস সালাম অবরুদ্ধ আছেন।

এর আগে সকাল থেকে ক্যাম্পাসে অবস্থান নেয় নিয়োগপ্রাপ্ত ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা।

বেলা ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিনদের সঙ্গে প্রশাসনের মিটিং চলছিল। সেসময় চাকরি পাওয়া ছাত্রলীগ নেতারা উপস্থিত হয়ে তাদের যোগদানের অনুমতি চান। এসময় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সঙ্গে চাকরি পাওয়াদের মধ্যে উচ্চবাক্য বিনিময় হয়।

পরে ছাত্রলীগ নেতারা যোগদান করতে না দিলে যাবেন না বলে অবস্থান নিলে রাবি প্রশাসন জরুরি সভায় বসেন। সভা শেষে ফের চাকরি পাওয়া নেতাদের সঙ্গে আলোচনায় বসে প্রশাসন। আলোচনায় সরকারি নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে যোগদানের অনুমতি দেওয়া সম্ভব নয় জানালে চাকরি পাওয়া নেতারা ফের উপাচার্যসহ প্রশাসনের সকলকে অবরুদ্ধ করেন।

এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য ও রাবি ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি আতিকুর রহমান সুমন বলেন, আমরা গত ৬ মে যোগদান করেছি। ক্যাম্পাস খোলায় আমরা নিজ দফতরে যোগদান করতে এসেছি। কিন্তু রুটিন দায়িত্বে থাকা উপাচার্য নিয়ম বহির্ভূতভাবে যোগদানে স্থগিতাদেশ দিয়েছেন। যদিও তিনি বলছেন, মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে স্থগিতাদেশ দিয়েছে কিন্তু তারা কোনো ডকুমেন্টস দেখাতে পারেনি। তাই আমরা যোগদানের দাবিতে অবরোধ করছি।

রুটিন উপাচার্য অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহা বলেন, উপাচার্য সরকারের প্রতিনিধি হিসেবে দায়িত্ব পালন করে। শিক্ষা মন্ত্রণালয় এই নিয়োগকে অবৈধ ঘোষণা করে তদন্ত কমিটি করেছিল। তদন্ত শেষ হয়েছে কিন্তু সরকার কোনো সিদ্ধান্ত এখনো নেয়নি। সেজন্য সরকারের নির্দেশ ভঙ্গ করার ক্ষমতা আমার নেই।

সামাজিক যোগাযোগ এ শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© সকল স্বত্ব www.muktasangbad.com অনলাইন ভার্শন কর্তৃক সংরক্ষিত