ব্রেকিং নিউজ ::
শিবপুরে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বঙ্গবন্ধু স্মৃতিচারণ ও দোয়া মাহফিল শিবপুরে ১৫ আগষ্ট জাতীয় শোক দিবস উদযাপন উপলক্ষে যুবলীগের প্রস্তুতি সভা শিবপুরে ব্যবসায়ীকে ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলা দেওয়ায় এলাকাবাসীর প্রতিবাদ সভা শিবপুর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে বঙ্গমাতার  ৯২তম জন্মবার্ষিকী পালন জৈন্তাপুরে প্রাইভেট কার নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পিতা ও শিশু কন্যার মৃত্যু,আহত ৩ শিবপুরে পুটিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী কৃষকলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত শিবপুরে হরিহরদী হাই স্কুল এন্ড কলেজের পক্ষ থেকে এমপি মোহনকে সংবর্ধনা শিবপুরে বিএনপির সাবেক মহাসচিব মান্নান ভূঁইয়ার ১২তম মৃত্যু বার্ষিকী পালন বৃক্ষরোপনে জাতীয় পুরস্কার পেল কাজী মফিজ উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয় মহাত্মা গান্ধী গোল্ডেন অ্যাওয়ার্ড পেলেন আলহাজ্ব মাহফুজুল হক টিপু
কালো টাকা সাদা করার অবাধ সুযোগ থেকে সরল সরকার

কালো টাকা সাদা করার অবাধ সুযোগ থেকে সরল সরকার

 

ব্যাপক সমালোচনার মধ্যে কালো টাকা সাদা করার অবাধ সুযোগ থেকে সরে এলো সরকার। বৃহস্পতিবার ২০০ পৃষ্ঠার বাজেট বক্তৃতার কোথাও এ বিষয়ে কিছু বলেননি অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। অর্থ আইন-২০২১ পুস্তিকায়ও কিছু খুঁজে পাওয়া যায়নি।

এনবিআরের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ২০২১-২২ অর্থবছরে অপ্রদর্শিত অর্থ প্রদর্শনের বিশেষ সুবিধা দেওয়া হয়নি। তবে আয়কর অধ্যাদেশ-১৯৮৪তে অপ্রদর্শিত অর্থ প্রদর্শনের সুযোগ রয়েছে। সেটা হচ্ছে, প্রচলিত কর পরিশোধ করে অতিরিক্ত ১০ শতাংশ হারে জরিমানা দিয়ে করদাতারা তাদের অপ্রদর্শিত অর্থ প্রদর্শনের সুযোগ পাবেন।

বিদায়ী ২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেটে কালো টাকা সাদা করার জন্য আয়কর অধ্যাদেশ-১৯৮৪তে দুটি নতুন ধারা যোগ করা হয়। সরকারের দেওয়া এ সুবিধা কালো টাকার মালিকরা ভালোভাবেই ব্যবহার করেছেন। এনবিআরের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, ২০২০-২১ অর্থবছরে ১০ হাজার ৪০৪ জন কালো টাকা সাদা করার সুযোগ নিয়েছেন। এই ব্যক্তিরা মোট ১৪ হাজার ৪৫৯ কোটি ৪০ লাখ টাকা সাদা করেছেন। যা প্রায় এর আগের ১৫ বছরের সমান। ২০০৫-০৬ অর্থবছর থেকে ২০১৯-২০ অর্থবছর পর্যন্ত ১৫ বছর ধরে মোট ১৪ হাজার ৫৯৩ কোটি ৪৩ লাখ টাকা সাদা করেছেন কালো টাকার মালিকরা।

এনবিআরের তথ্য অনুযায়ী, চলতি অর্থবছরে যে পরিমাণ কালো টাকা সাদা হয়েছে তার মধ্যে পুঁজিবাজারে ২৮২ কোটি ৪০ লাখ টাকা, আবাসন খাতে ২ হাজার ৫১৩ কোটি ২০ লাখ টাকা সাদা হয়েছে। বাকি ১১ হাজার ৬৬৩ কোটি ৮০ লাখ নগদ টাকা সাদা হয়েছে। সংশ্নিষ্টরা জানিয়েছেন, বিভিন্ন পেশাজীবী, সরকারি চাকরিজীবী, ব্যবসায়ীরা প্রধানত নগদ টাকা সাদা করেছেন। এসব টাকা সাদা করায় এনবিআর এক হাজার ৪৪৫ কোটি ৯৪ লাখ টাকা রাজস্ব পেয়েছে। বিপুল পরিমাণে কালো টাকা সাদা হওয়াকে এনবিআর করদাতাদের ‘অভূতপূর্ব’ সাড়া হিসেবে উল্লেখ করেছে।

সরকার বিনা প্রশ্নে মাত্র ১০ শতাংশ কর পরিশোধ করে কালো টাকা সাদা করার সুযোগ দেওয়ায় ব্যাপক ক্ষোভ প্রকাশ করেন নিয়মিত করদাতাদের অনেকে। দেশের অর্থনীতিবিদরাও এর সমালোচনা করেন। তারা বলেন, এতে সৎ করদাতারা নিরুৎসাহিত হবেন। অর্থনীতিবিদ ও ব্যবসায়ীরা বলছেন, কালো টাকা সাদা করার সুযোগ এমনভাবে রাখতে হবে যাতে সৎ করদাতা নিরুৎসাহিত না হন।

সামাজিক যোগাযোগ এ শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© সকল স্বত্ব www.muktasangbad.com অনলাইন ভার্শন কর্তৃক সংরক্ষিত