ব্রেকিং নিউজ ::
জনপ্রিয়তা অর্জন করতে নয় জনগণের সেবা করতেই শামীম গফুরের ব্যতিক্রমী উদ্যোগ শিবপুর পৌরসভায় মানবিক কার্যক্রমে অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করে চলেছেন শামীম গফুর শিবপুরে মৎস্যজীবী লীগের পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত শিবপুরে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিত শিবপুরে গ্রামবাংলার ঐতিহ্যবাহী কাছিটান খেলা অনুষ্ঠিত শিবপুরে শ্রমিক লীগ নেতার স্মরণে দোয়া মাহফিল জনপ্রিয়তায় ঈর্শ্বানিত হয়ে হত্যা মামলায় ফাসিয়ে দিল ইউপি সদস্যকে শিবপুর উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি জাহাঙ্গীর পাঠান,সম্পাদক কাদির কিবরিয়া শিবপুরে শীতবস্ত্র বিতরণ করলেন যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী মহিলা আওয়ামী লীগ নেত্রী রিমি শিবপুরে ঐতিহ্যবাহী দাড়িচাবাধা খেলা অনুষ্ঠিত
এভাবে রোগী বাড়লে হাসপাতালে জায়গা হবে না : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

এভাবে রোগী বাড়লে হাসপাতালে জায়গা হবে না : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

 

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বাড়তে থাকায় উদ্বেগ প্রকাশ করে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, প্রতিদিনই হাসপাতালগুলোতে রোগীর চাপ বাড়ছে। এভাবে সংক্রমণ অব্যাহত থাকলে হাসপাতালগুলোতে জায়গা দেওয়া যাবে না।

আজ রোববার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) বঙ্গমাতা ফজিলাতুননেছা মুজিব কনভেনশন সেন্টারে করোনা ফিল্ড হাসপাতাল তৈরির কাজের অগ্রগতি পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। এ সময় বিএসএমএমইউ উপাচার্য অধ্যাপক ডা. শারফুদ্দিন আহমেদ, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাশার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। দেশবাসীকে সরকারঘোষিত লকডাউন মেনে চলতে হবে। আমরা চাই, রোগীর সংখ্যা যেন আর না বাড়ে। সংক্রমণ কমাতে হলে সরকার যে বিধিনিষেধ জারি করেছে সেগুলো মেনে চলতে হবে।

করোনাভাইরাসের বিষয়ে মানুষকে আরও সচেতন হওয়ার আহ্বান জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, নিজ নিজ অবস্থানে থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কেউ ঘরের বাইরে যাবেন না। তিনি বলেন, আমাদের অনুরোধ সত্ত্বেও ঢাকা শহরের বিভিন্ন রাস্তায় প্রচুর লোক ঘোরাফেরা করছে। অনেকের মাস্ক পর্যন্ত পরে নাই। মানুষ গাড়িতে ও মোটরসাইকেলে ঘুরছে। করোনা সংক্রমণ অব্যাহত থাকলে বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো আমাদরে দেশের অর্থনীতিতে বিরূপ প্রভাব পড়বে।

ডেঙ্গু রোগীর বিষয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, এখন ডেঙ্গুর প্রকোপ বেড়ে চলছে। একদিকে করোনা ও নন-করোনা রোগীর চিকিৎসা অন্যদিকে ডেঙ্গুর প্রকোপ বেড়ে যাওয়ায় চিকিৎসকদের হিমশিম খেতে হচ্ছে।

ডেঙ্গু রোগীর চিকিৎসার জন্য পৃথক কয়েকটি হাসপাতাল প্রস্তুত করা হচ্ছে। এর মধ্যে স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ (মিটফোর্ড) হাসপাতাল, মিরপুরের লালকুঠি হাসপাতাল, সরকারি রেলওয়ে হাসপাতাল, টঙ্গীর আহসানউল্লাহ হাসপাতালসহ কয়েকটি হাসপাতালে শুধু ডেঙ্গুর চিকিৎসা হবে।

সামাজিক যোগাযোগ এ শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© সকল স্বত্ব www.muktasangbad.com অনলাইন ভার্শন কর্তৃক সংরক্ষিত