ঢাকা ০৫:৩৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::

জনপ্রিয়তায় ঈর্শ্বানিত হয়ে হত্যা মামলায় ফাসিয়ে দিল ইউপি সদস্যকে

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১১:৩৫:২৫ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২ জানুয়ারী ২০২৩
  • / ৫৯৯ বার পড়া হয়েছে

নরসিংদী সংবাদদাতা

নরসিংদী সদর উপজেলার হাজিপুর ইউনিয়নে জনপ্রিয়তায় ঈর্শ্বানিত হয়ে হত্যা মামলায় ফাসিয়ে দিল ইউপি সদস্যকে। এলাকাবাসির সূত্রে জানাযায় গত ২৬ শে ডিসেম্বর সকাল অনুমান ৯ ঘটিকায় বদরপুর গ্রামের বাচ্চু মিয়ার পুত্র লিটন তার ফসলি জমিতে যাওয়ার পথে একই গ্রামের হোসেন গং তার উপর হামলা করে। নিজেকে রক্ষায় লিটনও হামলা করে। উভয় পক্ষের হামলায় লিটন ও কাদির রক্তাক্ত জখম হয়। কাদির ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসারত অবস্থায় অতিরিক্ত রক্ত ক্ষরনের কারনে মারা যায়। লিটন আঘাত প্রাপ্ত হয়ে ঢাকা প্রাইভেট হাসপাতালে চিকিৎসারত অবস্থায় পুলিশ আটক করে কাদির হত্যা মামলায় জেল হাজতে প্রেরন করেন। অপর দিকে হাজিপুর ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের তিনবারের নির্বাচিত স্বর্ণ পদক প্রাপ্ত মেম্বারের জনপ্রিয়তায় ঈর্শ্বানিত হয়ে একটি কূচক্রীমহল সন্দেহভাজন হিসেবে উক্ত মামলায় আইন প্রয়োগকারি সংস্থাকে দিয়ে আলতাফ মেম্বারকে গ্রেফতার করায়। এ বিষয়ে এলাকাবাসি ও সূধিজন তিব্র নিন্দা প্রকাশ করেছেন। আর এ বিষয়ে লিটনের মা জানায়, আমার ছেলে লিটনকে হত্যার উদ্যেশে আক্রমন করলে আত্ব রক্ষার্থে আমার ছেলে প্রতিরোধ করলে কাদির ও আমার ছেলে আহত হয় এবং চিকিৎসাধীন অবস্থায় কাদির মারা যায় এবং আমার ছেলে আহত হয়ে বর্তমানে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে। এ বিষয়ে এলাকাবাসি জানায় উভয় পক্ষের মধ্যে জমি সংক্রান্ত বিরোধ দীর্ঘ দিন ধরে চলে আসছে। স্থানীয় গন্যমান্য ব্যাক্তিসহ আলতাফ মেম্বার বিরোধটি মিমাংসা করার চেষ্টা করে আসছিল। সুষ্ট ও নিরপেক্ষ তদন্তের মাধ্যমে আলতাফ মেম্বার কে উক্ত মামলা থেকে পরিত্রান চায়।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

Mahbub Khan Akash

"মুক্ত সংবাদ" আপনার মত প্রকাশে সদা জাগ্রত। আমরা কাজ করি সত্যের অন্বেষণে।
ট্যাগস :

জনপ্রিয়তায় ঈর্শ্বানিত হয়ে হত্যা মামলায় ফাসিয়ে দিল ইউপি সদস্যকে

আপডেট সময় : ১১:৩৫:২৫ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২ জানুয়ারী ২০২৩

নরসিংদী সংবাদদাতা

নরসিংদী সদর উপজেলার হাজিপুর ইউনিয়নে জনপ্রিয়তায় ঈর্শ্বানিত হয়ে হত্যা মামলায় ফাসিয়ে দিল ইউপি সদস্যকে। এলাকাবাসির সূত্রে জানাযায় গত ২৬ শে ডিসেম্বর সকাল অনুমান ৯ ঘটিকায় বদরপুর গ্রামের বাচ্চু মিয়ার পুত্র লিটন তার ফসলি জমিতে যাওয়ার পথে একই গ্রামের হোসেন গং তার উপর হামলা করে। নিজেকে রক্ষায় লিটনও হামলা করে। উভয় পক্ষের হামলায় লিটন ও কাদির রক্তাক্ত জখম হয়। কাদির ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসারত অবস্থায় অতিরিক্ত রক্ত ক্ষরনের কারনে মারা যায়। লিটন আঘাত প্রাপ্ত হয়ে ঢাকা প্রাইভেট হাসপাতালে চিকিৎসারত অবস্থায় পুলিশ আটক করে কাদির হত্যা মামলায় জেল হাজতে প্রেরন করেন। অপর দিকে হাজিপুর ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের তিনবারের নির্বাচিত স্বর্ণ পদক প্রাপ্ত মেম্বারের জনপ্রিয়তায় ঈর্শ্বানিত হয়ে একটি কূচক্রীমহল সন্দেহভাজন হিসেবে উক্ত মামলায় আইন প্রয়োগকারি সংস্থাকে দিয়ে আলতাফ মেম্বারকে গ্রেফতার করায়। এ বিষয়ে এলাকাবাসি ও সূধিজন তিব্র নিন্দা প্রকাশ করেছেন। আর এ বিষয়ে লিটনের মা জানায়, আমার ছেলে লিটনকে হত্যার উদ্যেশে আক্রমন করলে আত্ব রক্ষার্থে আমার ছেলে প্রতিরোধ করলে কাদির ও আমার ছেলে আহত হয় এবং চিকিৎসাধীন অবস্থায় কাদির মারা যায় এবং আমার ছেলে আহত হয়ে বর্তমানে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে। এ বিষয়ে এলাকাবাসি জানায় উভয় পক্ষের মধ্যে জমি সংক্রান্ত বিরোধ দীর্ঘ দিন ধরে চলে আসছে। স্থানীয় গন্যমান্য ব্যাক্তিসহ আলতাফ মেম্বার বিরোধটি মিমাংসা করার চেষ্টা করে আসছিল। সুষ্ট ও নিরপেক্ষ তদন্তের মাধ্যমে আলতাফ মেম্বার কে উক্ত মামলা থেকে পরিত্রান চায়।